মদনের রান্নার মাসী

রোজ রোজ একা থাকা মদনবাবুর এইভাবে হোটেলের খাবার আর সহ্য হচ্ছে না। বয়স হয়েছে একষট্টি পৌরসভার চেয়ারম্যান সাহেব বিপত্নীক কামুক লম্পট মদনচন্দ্র দাস মহাশয়ের । আগের রান্নার মাসী অকস্মাৎ কাজ ছেড়ে চলে গেছেন। এইবার এসেছে নতুন মাসী তথা হেঁসেল রাণী লীলা। প্রথমদিনে সন্ধ্যায় মদনবাবুর বাসাতে এসে পৌছেছে রাতদিনের খাওয়া -পরার রান্না -কাম-ঘরকন্যার কাজের মাসী হেঁসেল রাণী লীলা কি অভ্যর্থনা পেলেন মদনবাবুর বাসাতে ,এই নিয়ে আজকের কাহিনী

মদনের রান্নার মাসী – তৃতীয় পর্ব

বিপত্নীক ,একষট্টি বছর বয়সী এক ভদ্রলোক অত্যন্ত কামুক ও লম্পট, স্থানীয় পৌরসভার চেয়ারম্যান সাহেব ও লীলার প্রথম সন্ধ্যায় ও রাতে কি অভিজ্ঞতার কাহিনী ৩য় পর্ব

মদনের রান্নার মাসী – দ্বিতীয় পর্ব

বিপত্নীক ,একষট্টি বছর বয়সী এক ভদ্রলোক অত্যন্ত কামুক ও লম্পট, স্থানীয় পৌরসভার চেয়ারম্যান সাহেব ও লীলার প্রথম সন্ধ্যায় ও রাতে কি অভিজ্ঞতার কাহিনী ২য় পর্ব

মদনের রান্নার মাসী – প্রথম পর্ব

বিপত্নীক ,একষট্টি বছর বয়সী এক ভদ্রলোক অত্যন্ত কামুক ও লম্পট, স্থানীয় পৌরসভার চেয়ারম্যান সাহেব ও লীলার প্রথম সন্ধ্যায় ও রাতে কি অভিজ্ঞতার কাহিনী ১ম পর্ব

Scroll To Top