পারিবারিক গ্রুপ খেলা পর্ব ৫

আম্মু একটু ভয় পেয়ে যায়। আমি বলবো না কিন্তু আমাকে কথা দিতে হবে আর সামনে আগাবি না। ভুলে যাবি। আমি নিলার সাথেও কথা বলবো।

আম্মু কথা বলার দরকার নাই। আপুকে আর লজ্জা দেওয়ার দরকার নাই। আমি আর কিছুই করিবো না।

আম্মু আবার বলে কয়দিন যাবত এমন চলছে?

সত্যিই আম্মু গত রাতেই প্রথম। আপুর সুমন ভাইয়ার সাথে ব্রেকাপ হওয়াতে মন খারাপ ছিল। আমি মন ভাল করতে কথা বলতে বলতে হয়ে গেছে।

আম্মু হেসে দেয় আর বলে, এমন মন ভাল করলি আর ভাই বোনে……। বাহিরে আর মেয়ে নাই। ঘরেই আপন বোনের সাথে করতে হবে।

আমিও একটু হালকা হয়ে যাই। আম্মু আমি কি আর তেমন বাহিরে যাই। মেয়েলোক বলতে তুমি আর আপুরকেই চিনি।

তুই যা নিলাকে কিছু বলার দরকার নাই। আর কিছু করবি না। আমার মাথা ব্যাথা করছে একটু ঘুমাবো।

আমি প্রায় সময় আম্মুর মাথা টিপে দেই তাই বলি, আম্মু আমি তোমার মাথা টিপে দেই একটু।

আম্মু না না না করে বলে, তোরে আর আমার বিশ্বাস নাই। যে আপন বোনের সাথে খারাপ কাজ করতে পারে সে আমার মাথা টিপার দরকার নাই।
আম্মু প্লিজ আমাকে আর লজ্জা দিও না। আমি তোমাকে নিয়ে খারাপ চিন্তা করবো কেন?

আজ বুঝলাম বদমায়েশের মা বোন নাই। বাহির হয়ে যা।

প্লিজ আম্মু এমন করে বলে আমাকে আর লজ্জা দিওনা। আমি তোমার একমাত্র ছেলে।
এই জন্যই তো মাপ করে দিয়েছি। একমাত্র ছেলে সেই ছেলেই ইতর।

তুমি যদি আমাকে মাথা টিপে দিতে রাজী না হও তাহলে মনে করবো ক্ষমা করনাই। এই বয়সে ভুল হয়।

আমি বিমানেই সন্দেহ করেছিলাম তোদের মাখামাখি দেখে। ঠিক আছে একটু টিপে দিয়ে যা।

আম্মু সোফায় বসে আছে আর আমি পিছনে দাড়িয়ে মাথায় হাত বুলিয়ে দিচ্ছি। মাথায় খারাপ চিন্তা চলে আসে। তাই একটু সেক্সুয়ালি টাচ করি। কপাল গাড় গলায় আলতো টাচ করে করে আম্মুর চুলে বিলি কেটে দেই। আম্মু আরামে চোখ বন্ধ করে বসে থাকে। গায়ের উড়নাটা পরে যায় নিচে কিন্তু আম্মুর খেয়াল নেই। আমি বলি আম্মু তোমার উড়না পরে গেছে।
আম্মু লজ্জা পেয়ে যায়। তারাতাড়ি উড়না তুলে বলে আর লাগবে না। তুই যা।

আমি আম্মুকে বলি, আম্মু লজ্জা পাচ্ছ কেন? আমি তো ঘরেরই ছেলে।

তুই ঘরের ছেলে হলে কি হবে। আমি কি পুজা করবো।

কি যে বল আম্মু, আমি তোমাকে পুজা করবো।।তুমি আমার লক্ষী সোনা আম্মু বলে, পেছন থেকে আম্মুর গালে একটা চুমু দেই। সব সময়ই দেই এমন।

আম্মু শিহরিত হয়ে উঠে বলে, যা যা আর লাগবে না। আবার দেখিস নিলার সাথে শুয়ে থাকিস না।
আম্মু আপু যদি আমার কাছে আসে তাহলে আমি কি বলবো। আমি কি বলবো যে আম্মু জেনে গেছে। যদি না বলি তাহলে আপু আসবেই আমার কাছে। নাস্তা করতে আসার সময়ও বলেছে, তারাতারি যেন যাই। এই কথা বলতেই আপুর ফোন আসে। আমি আম্মুকে বলি আপু।

আম্মু আমাকে স্পিকারে দিয়ে কথা বলতে বলে, আমি হ্যালো বলতেই বলে, আমার জান তুমি কই। আমিতো অপেক্ষা করছি। বাহিরে যাবার আগে একবার হবে না?

আমি আম্মুর রুমে ছিলাম এতক্ষন। আর আপু আমি গিলটি ফিল করছি। আমাদের এমন করা উচিত না।
এতক্ষন আম্মুর রুমে কি। জানালা দিয়ে দেখলাম আব্বু বাহিরে গেছে। আম্মুর কাছে এতক্ষন কি? মতলব আছে নাকি?
কি যে বল, আমি আসছি।

তারাতারি আয়। আমি গিল্টির গুষ্টি কিলাই।।আমি রেডি।।

আম্মু আমার দিকে চেয়ে বলে, নিলা এত খারাপ কথা বলতে পারে। আমাকে নিয়েও খারাপ কথা বলে।

আমি আম্মুকে বলি, আম্মু আরো অনেক কিছু বলে, মুখে বলা যাবে না। আমি এখন কি করবো বলে দাও।

তুই যা খুশি কর। আমি কিছু নিলাকে বললে কিযে কি করে ঠিক নাই। যে জেদী মেয়ে।
আম্মু আব্বু না আসা পর্যন্ত আমি তোমার কাছেই থাকি। বুদ্ধি বাহির করি।

না না না তুই বাহির হয়ে যা। দেখলি না আমকে নিয়ে নিলা কি বললো। কি হতে কি বলে ফেলে আবার তোকে নিয়ে।
এমন কিছুই না আম্মু। তোমাকে নিয়ে সন্দেহ করবে না। সেটা ফান করছে।।

তুই না বললে আর কত কিছু বলে,

ইয়ার্কি করেছে। তুমি নাকি আব্বুকে নিয়ে এখন সুখি না। আব্বুর সাথে রাগ কর প্রতিদিন।।

ছি ছি এই মাইয়া কান পেতে সব শুনে। তাই না।

বাদ দাও। তুমি মাথা ব্যাথার ভান করে শুয়ে থাক আর আমি মালিশ করে দেই আর চিন্তা করি কি করা যায়।
তুইও কি আমাকে নিয়ে এমন বিশ্বাস করিস নাকি। বয়স হলে সব পুরুষের দুর্বল হয়।

৪ আম্মু বয়স হলে সবাই দুর্বল হয়। তবে তুমি যে আব্বুর চেয়ে ফিট সেটা সবাই জানে। আপু হয়তো জেলেস যে তুমি দেখতে এখনো এত সুন্দর। বহু মানুষ মনে করে তুমি আর আপু দুই বোন। আম্মু আমি এখন কি করবো তুমি বল। আপু কিন্তু আমার জন্য অপেক্ষা করছে।

তুই যা। যা ভাল মনে করিস তাই কর। খুব এম্বারেসিং ব্যাপার। তোর আব্বু জানলে আর নিলা জানলে আমাদের হলিডে শেষ হয়ে যাবে। কি পরামর্শ দিব বুঝতে পারছিনা।

আম্মু আমি গেলেই আপু চাইবে। আমি না করলে রেগে যাবে। আব্বু না আসা পর্যন্ত আমি এখানেই থাকি।

না তুই চলে যা। নিলা আমাকে নিয়ে কি বললো শুনিস নাই।

আম্মু আপু কি বলেছে সেটা চিন্তা করার দরকার কি। আমরা কি আর কিছু করছি নাকি? তোমার আব্বু আছে না।
আম্মু আমার দিকে চেয়ে হেসে দিয়ে বলে, তোর আব্বু না থাকলে নিজের ছেলেকে দিয়ে………

আপুর কেউ নাই তাই চাহিদা পুরন করতেই হয়তোবা এমন হয়েছে। তোমারও তো চাহিদা আছে তাই না। তাহলে আমি কিন্তু গেলাম। কিছু হলে আমি না করতে পারবো না। চেষ্টা করবো। তবে আপু যা করে এতে আমি কিন্তু না করতে পারবো না।

ঠিক আছে তুই যা। আমি চিন্তা করি কি করা যায়।

আমি আম্মুর দিকে চেয়ে বলি, তুমি কিন্তু অনুমতি দিলে আম্মু। আর হ্যা তুমি কিন্তু আবার আমাদের রুমে চলে আসো না।

আম্মু হাসি দিয়ে বলে, অসভ্য কোথাকার যা, ডিষ্টার্ভ করবো না। নিলাকে কিন্তু তুই বলিস না।

আম্মু তুমি গোপন রাখলে আমিও গোপন রাখবো। তবে তোমাকে সব বলবো আমি।

আমি রুমে যেতে আপু রেগে যায়। এতক্ষন বসে আছি তুই কই গেলে। আমার অবস্তা খারাপ। কিছু কর। আমি আর দেরি না করেই আপুকে বিছানায় ফেলে ইচ্ছামত করি। চরম আনন্দে দুইজনের ভালবাসার মিলন ঘটিয়ে গোছল করে কাপড় পরে রেডি হয়ে ১টার সময় বাহির হই আম্মুকে ফোন দিয়ে।

নিচের লভিতে আম্মু আর আব্বু চলে আসে। আম্মু যেন অবিবাহিত মেয়ের মত ইংলিশ ফ্রগ পরে নাদোসনোদোস করে নেমে আসে। আম্মু একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে কাজ করতো। সেখান থেকেই ষ্টাইলের প্রতি আলাদা খেয়াল। এখন ইনভাইরনমেন্টের সাথে বিদেশি একটা কোম্পানির পার্ট টাইম উপদেষ্টা হিসাবে আছে। আজ আম্মুকে দেখতে আপুর চেয়েও বয়স কম মনে হয়।

কাছে আসতেই আপু বলে, আম্মু তুমি আব্বুর সাথে গেলে মানুষ মনে করবে তুমি উনার মেয়ে। খুব সুন্দর লাগছে তোমাকে।

আমরা খাবার খেয়ে হাটতে হাটতে বিচে যাই। আম্মু যেন আমাকে কি বলতে চায় সেটা চেহারা দেখেই বোঝা যায়।

আব্বু আর আপু অনেক দূর চলে যাওয়ায় আমি আম্মুর কাছে এসে বলি, তুমি কিছু বলবে আম্মু?

আম্মু বলে, তুই রুমে যাওয়ার পর নিলা কি বললো কিছু বললি নাতো।

আম্মু সেটা আমার লজ্জা করে। আমি না করেছি আম্মু কিন্তু আপু কাপড় খুলে আমাকে জড়িয়ে ধরলে আমি না করি কি করে। আম্মু প্লিজ কিছু বলিও না। আপু খুব খুশি।

এই কাজ করে সবাই খুশি হয় কিন্তু ভবিষ্যৎ কি?
ভবিষ্যৎ পরে চিন্তা করবো আম্মু। হলিডেটা ইঞ্জয় করি। তুমিও আব্বুর সাথে অনেকদিন পর বাহির হয়েছ। আনন্দ কর।

উনাকে আমি পাব কোথায়। কক্সবাজার উনার বহু বন্ধু দেখবি সব সময় উনাদের নিয়েই সময় শেষ করে দিবে।

অসুবিধা নাই আম্মু, আমি আছি তোমার সংগ দেওয়ার জন্য।

তুই দিবি সংগ। একটু মাথা টিপে দিতে বললে তোর সময় নাই আর এখন নিলার পেছন পেছন ঘুরঘুর করবি। মাইগ্রেনের ব্যাথা আমার জীবনে যাবে না।

আম্মু যখন বলবে তখন আমি তোমার মাথা টিপে দিব। চাইলে ফুল বডি ম্যাসেজ করে দিব।

আমি কি তোর কাছে ফুল বডি চাইছি?

আমার একটা দায়িত্ব আছে না আম্মু। তুমি না চাইলেও আমি ছেলে হিসাবে দেওয়া উচিত। অই দেখ আব্বু তোমার জন্য দাঁড়িয়ে আছে। কত ভালবাসে তোমাকে।

ছাই বাসে। শুধু মুখে।

আম্মু তাহলে কি আপুই ঠিক আব্বু দুর্বল।

আমি কি সেই কথা বলছি। দুর্বল হউক আর যাই হউক উনি আমার স্বামী।

আম্মু যাও তোমার স্বামীকে নিয়ে আলাদা ঘুরে বেড়াও আর আমরা আলাদা যাই।
এখন না। তোরা বিকালে আলাদা আসিস। এখানে বহু লোক আমাদের চিনে। এমন কিছু করিস না যেন মানুষ খারাপ কিছু বলে।

না আম্মু, বাহিরে কিছু করবো না। আমি আম্মুর হাত ধরে আম্মুর চোখে চেয়ে বলি, আম্মু তোমাকে ধন্যবাদ তুমি আমাদের সম্পর্কটা সহজভাবে নিয়েছ।

আমি হলিডেটা নষ্ট কর‍তে চাইনা।আর নতুন সম্পর্ক তোদের একটা মোহ কাজ করে। তাই কিছু বলছি না। দেখিস আবার যেন পেট বাধিয়ে না দিস।।

না না আম্মু সেটা হবে না। আমি কন্ডম এনেছি। তুমি নিজেই দেখছো।

আমি হোটেলের পাশ থেকে টেবলেট কিনে দিব। নিলাকে বলিস প্রতিদিন খেতে। কনডম রিস্ক আর মজা পাওয়া যায় না।

কেন আম্মু তুমি কনডম পছন্দ কর না।

তোরে বলবো কেন? কনডম দিয়ে কি আর আসল মজা পাওয়া যায়।

What did you think of this story??

Comments

Scroll To Top